জেনে নিন মধু ও দারুচিনি মিশ্রণ নিয়মিত খাওয়ার ৯টি স্বাস্থ্যগত উপকারিতা

প্রাকৃতিক উপাদান সমূহ তার নিজ নিজ গুণে গুণান্বিত। মধুর স্বাস্থ্যগত উপকারিতা সম্পর্কে কম বেশি আমরা সবাই জানি। এই মধু যখন দারুচিনির সাথে মিশে যায় তখন এটি আরোও স্বাস্থ্য সম্পন্ন হয়ে উঠে।
বিভিন্ন গবেষণায় দেখা গিয়েছে মধু ও দারুচিনির মিশ্রণ স্বাস্থ্যের জন্য বেশ উপকারি। হৃদরোগ থেকে শুরু করে ওজন কমানো পর্যন্ত প্রায় সবকিছুতে মধু-দারুচিনির মিশ্রণ তুলনাহীন। মধু-দারুচিনির মিশ্রণের স্বাস্থ্যগত উপকার নিয়ে জানিয়েছেন পুষ্টিবিদ আনিকা শাহ্‌জাবিন। আসুন জেনে নেই, দারুচিনি ও মধুর স্বাস্থ্যগত উপকারসমূহ।

১। পিত্ত থলিতে সংক্রমণ

পিত্ত থলির সংক্রমণ রোধ করে থাকে মধু-দারচিনির মিশ্রণ। মধু দারুচিনিতে অ্যাণ্টি ব্যাক্টোরিয়াল উপাদান আছে যা পিত্ত থলিকে বাইরে ব্যাকটেরিয়ার সংক্রমণের হাত থেকে রক্ষা করে।

২। হৃদরোগ

হার্ট সুস্থ্য রাখার জন্য দারুচিনি ও মধুর পানির বিকল্প নেই। প্রতিদিন সকালে এক গ্লাস মধু ও দারুচিনি মিশ্রিত পানি পান করলে হৃদরোগ থেকে দূরে থাকা যায়। এটা আপনার রক্তের কোলেস্টেরলের মাত্রা কমিয়ে হৃদরোগের সম্ভাবনা কমিয়ে দেবে অনেকখানি।

৩। বাত/আর্থারাইটিস

এক জরিপে দেখা গিয়েছে মধু দারুচিনির পানি পান করার ফলে খুব অল্প সময়ের মধ্যে বাতের ব্যথা কমে গেছে। এক গ্লাস গরম পানিতে দুই টেবিল চামচ মধু আর এক টেবিল চামচ দারুচিনির গুঁড়ো মিশিয়ে নিন। এই পানি প্রতিদিন নিয়ম করে সকালে ঘুম থেকে উঠে আর রাতে ঘুমাতে যাওয়ার আগে পান করুন। কয়েক সপ্তাহের মধ্যে এটি আপনার বাতের ব্যথা কমিয়ে দিবে।

৪। ওজন কমাতে

ওজন কমাতেও মধু দারুচিনির জুড়ি নেই। এক সমীক্ষায় দেখা গিয়েছে দারুচিনি ও মধু খুব দ্রুত চর্বি কমায়। প্রতিদিন দারুচিনি গুঁড়ো ও মধু দিয়ে ফোটানো এক গ্লাস পানি খালিপেটে পান করুন। এটি আপনার ওজন কমাতে সাহায্য করবে।

৫। কোলেস্টরল

এক কাপ চায়ের সঙ্গে দুই টেবিল চামচ মধুর সঙ্গে তিন টেবিলচামচ দারুচিনি গুঁড়ো মিশিয়ে পান করুন এটি আপনার রক্তে কোলেস্টরলের মাত্রা ১০ শতাংশ কমেয়ে দিবে। রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণেও এর জুড়ি নেই।

৬। নিঃশ্বাসে দুর্গন্ধ

কসুম গরম পানিতে মধু ও দারুচিনি মেশান। প্রতিদিন সকালে এটি পান করুন। এটি আপনার মুখের দুর্গন্ধ দূর করে দেবে।

৭। রোগ প্রতিরোধ ব্যবস্থা

নিয়মিত মধু আর দারুচিনির গুঁড়ো খেলে আপনার শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ে। শরীরের ভেতরে অঙ্গ প্রত্যঙ্গগুলো বিভিন্ন রকমের ব্যাকটেরিয়া ও ভাইরাসের সঙ্গে যুদ্ধ করে আপনাকে সুস্থ থাকতে সাহায্য করে।

৮। ব্রণ দূর করতে

মধু দারুচিনি পেষ্ট ব্রণের ওপর লাগান। এটা দ্রুত ব্রণ দূর করতে সাহায্য করবে। মধুতে অ্যান্টি ব্যাক্টোরিয়াল এবং দারুচিনিতে অ্যান্টি ইনফ্লামাটোরি উপাদান আছে যা ব্রণ দূর করে থাকে।

৯। চুল পড়া রোধে

অলিভ অয়েলের সাথে ১ টেবিল চামচ মধু, ১ চা চামচ দারুচিনির গুঁড়া মিশিয়ে পেষ্ট তৈরি করে নিন। এটি চুলের ফাঁকা জায়গায় লাগান (যেখান থেকে চুল পড়ে গেছে সেখানে)। ১৫ মিনিট পর কুসুম গরম পানি দিয়ে চুল শ্যাম্পু করে ফেলুন। এটি নতুন চুল গজাতে সাহায্য করবে।